21 C
Dhaka, BD
Home Blog

৪০ লাখ ট্র্যাক্টর নিয়ে ভারতীয় পার্লামেন্ট ঘেরাওয়ের হুঁশিয়ারি কৃষকদের

6

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কেবল চার লাখ নয়, এবার ৪০ লাখ ট্র্যাক্টর নিয়ে ভারতের সংসদ ভবন ঘেরাওয়ের হুঁশিয়ারি দিলেন কৃষক আন্দোলনের নেতা রাকেশ টিকায়েত। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাজস্থানে আয়োজিত কৃষক সমাবেশ থেকে এমন হুমকি দেন তিনি।

আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী কৃষকদের এই কর্মসূচির জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেন তিনি। যে কোনো সময় এই কর্মসূচির দিন-ক্ষণ ঘোষণা করা হবে বলেও এবার হুমকি দেন রাকেশ। খবর এনডিটিভির

গত ২৬ জানুয়ারির ট্র্যাক্টর মিছিলে সংঘর্ষের পর থেকে কিছুটা থিতিয়ে পড়েছিল ভারতের নয়া কৃষি আইন বাতিলের এই আন্দোলন। পরে ফের রাকেশ টিকায়েতের ডাকেই হরিয়ানা ও পাঞ্জাবের কৃষকরা আন্দোলনমুখী হন। কলকাতা পর্যন্ত মিছিল করারও হুমকি দেওয়া হয়। তারপরেই মঙ্গলবারের কৃষক মহা পঞ্চায়েতে ফের দিল্লির সংসদ ভবনে অভিযানের হুঁশিয়ারি দিলেন তিনি।

ভাষণে রাকেশ বলেছেন, ইন্ডিয়া গেটের সামনে ট্র্যাক্টর নিয়ে জড়ো হবেন কৃষকরা। সেখানে মাঠ চাষ করে ফসল ফলানো হবে। কেন্দ্রীয় সরকার যদি কৃষকদের দাবি না মানে, তাহলে সংসদ ভবন ঘেরাও করবেন কৃষকরা। যে কোনো দিন সেই কর্মসূচি ঘোষিত হতে পারে। তবে পূর্ব ঘোষণা মতো চার লাখ নয়, এবার মিছিলে অংশ নেবে ৪০ লাখ ট্র্যাক্টর।

ভারতের কৃষক আন্দোলনের এই নেতার মতে, সরকার বড় বড় বহুজাতিক সংস্থার লাভের দিকটাই দেখছে। কিন্তু কৃষকদের কথা না ভেবে যদি শিল্পপতিদের লাভের দিকটাই সরকার দেখে, তাহলে বড় বড় গুদাম ধ্বংস করবেন কৃষকরা।

রাকেশের পাশাপাশি মঙ্গলবার স্বরাজ অভিযানের নেতা যোগেন্দ্র যাদব ও সারাভারত কৃষক সভার প্রধান অমরা রাম সেই অনুষ্ঠানে ভাষণ দেন।

বাড়ির কাজের জন্যও স্ত্রীকে বেতন দিতে হবে : চীনা আদালত

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বৈবাহিক সম্পর্ক যাপন করতে গিয়ে স্ত্রী ঘরের যেসব কাজ করেছেন, তার জন্য তাকে অর্থ পরিশোধ করতে স্বামীকে নির্দেশ দিয়েছেন চীনের বেইজিংয়ের একটি আদালত। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আদালতের এই রায়ের ফলে ওই নারী তার পাঁচ বছরের বৈবাহিক জীবনে গৃহকর্মের জন্য ৫০ হাজার ইউয়ান পাবেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা সাড়ে ছয় লাখ টাকার বেশি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বেইজিংয়ের আদালতের এই রায়কে ঐতিহাসিক হিসেবে দেখা হচ্ছে। আদালতের রায় নিয়ে চীনের সাইবার জগতে ব্যাপক তর্ক-বিতর্ক হচ্ছে। অনেকে বলছেন, পাঁচ বছরের পারিশ্রমিক হিসেবে ওই নারীকে যে পরিমাণ অর্থ দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তা যথেষ্ট নয়।

এ বছরই চীনে নতুন দেওয়ানি আইন কার্যকর হয়। সেই আইন অনুযায়ী, বিচ্ছেদের ক্ষেত্রে স্বামী বা স্ত্রী ক্ষতিপূরণ চাইতে পারবেন, যদি তিনি বৈবাহিক জীবনে তার জীবনসঙ্গীর তুলনায় ঘরের কাজ ও দায়িত্ব বেশি পালন করেন। সেই আইনের অধীনেই বেইজিংয়ের বিচ্ছেদ আদালত থেকে ঐতিহাসিক এই রায়টি এসেছে।

আদালতের নথি অনুযায়ী, চেন নামের ওই পুরুষ ওয়াং নামের নারীকে বিয়ে করেন ২০১৫ সালে। কিন্তু বিচ্ছেদ চেয়ে গত বছর আদালতে আবেদন করেন চেন। ওয়াং প্রথমে বিচ্ছেদে রাজি ছিলেন না। তবে পরে তিনি বিচ্ছেদের জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। যুক্তি দেন, বৈবাহিক জীবনে তার স্বামী চেন ঘরের কোনও কাজই করেননি। এমনকি তাদের ছেলের দেখভালের দায়িত্বও পালন করেননি।

বেইজিংয়ের ফাংশান জেলা আদালত ওয়াংয়ের পক্ষে রায় দেন। ওয়াং বৈবাহিক জীবনে ঘরের যেসব কাজ করেছেন, তার জন্য তাকে এককালীন ৫০ হাজার ইউয়ান দিতে চেনকে নির্দেশ দেন আদালত। এ ছাড়া বিচ্ছেদর পর ওয়াংয়ের খোরপোষ বাবদ তাকে মাসে দুই হাজার ইউয়ান করে দেওয়ার জন্য চেনকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

আদালত বলেছেন, বিবাহবিচ্ছেদের পর সাধারণত দুজনের (দম্পতি) যৌথ পরিমাপযোগ্য সম্পত্তি ভাগাভাগি হয়। কিন্তু গৃহকর্ম অপরিমাপ্য সম্পত্তি, আর তার মূল্য রয়েছে। মামলার রায় নিয়ে চীনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবো সরগরম হয়ে উঠেছে। সেখানে এ নিয়ে চলছে তর্ক-বিতর্ক। অনেক ব্যবহারকারী বলছেন, পাঁচ বছরের গৃহকর্মের জন্য ৫০ হাজার ইউয়ান খুবই কম মজুরি।

চীনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবোতে একজনের মন্তব্য, তিনি হতবাক। একজন পূর্ণকালীন গৃহিণীর ঘরের কাজের মূল্যকে অবজ্ঞা করা হয়েছে। বেইজিংয়ে একজন আয়াকে এক বছরের জন্য নিয়োগ দিলে ৫০ হাজার ইউয়ানের বেশি খরচ হয়।

কেই কেউ বলছেন, সংসারে পুরুষদের আরও বেশি ঘরের কাজ করা উচিৎ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ইব্রাহিম খালেদ আর নেই

186

নিজস্ব প্রতিবেদক : না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ও খ্যাতিমান ব্যাংকার খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ। (ইন্না লিল্লাহি….রাজিউন)।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের ছেলে খোন্দকার সাঈদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বাবা ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে পিজি হাসপাতালের আইসিইউতে মারা গেছেন। সকাল ১১টার দিকে সেগুনবাগিচার কচিকাচার মেলায় রাখা হবে তার মরদেহ। পরে বাদ জোহর বায়তুল মোকাররম মসজিদে জানাজা শেষে গোপালগঞ্জ সদরে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর গত ১ ফেব্রুয়ারি খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদকে রাজধানীর শ্যামলীতে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীকালে সেখান অবস্থার অবনতি হলে তাকে বিএসএমএমইউতে স্থানান্তর করা হয়।

২৮ দিন পর বস্তাবন্দী মায়ের মরদেহ উদ্ধার, ছেলেসহ আটক ২

4

জেলা প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ার মিরপুরে মাকে হত্যা করে বস্তাবন্দী করে পানিতে ফেলে দেওয়ার ২৮ দিন পর ওই মায়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে কুষ্টিয়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ ঘটনায় ছেলেসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫ টার দিকে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের দক্ষিণ কাটদহ এলাকার একটি পুকুর থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত মহিলার নাম মমতাজ বেগম (৫৫)। তিনি ওই এলাকার মৃত ফজল বিশ্বাসের স্ত্রী।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আমিরুল ইসলাম সান্টু জানান, ছেলে মুন্নাকে নিয়ে মমতাজ বেগমের বসবাস ছিলো। তিন মেয়ের বিয়ে হয়ে যাওয়া এবং স্বামী ফজল বিশ্বাসের মৃত্যুর পরে ছোট ছেলে মুন্না আর তার মা বাড়িতে থাকতো। ২৮ দিন ধরে মুন্নার মা মমতাজ বেগম নিখোঁজ ছিলো। এ ঘটনায় সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) পোড়াদহ ইউনিয়নের দক্ষিণ কাটদহ এলাকার ইয়াসিনের ছেলে রাব্বিকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। পরে মঙ্গলবার পুলিশে এসে পুকুর থেকে বস্তাবন্দী মরদেহ উদ্ধার করে। পরে এ ঘটনায় মমতাজের ছেলে মুন্নাকে আটক করেছে পুলিশ।

কুষ্টিয়া ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মূলত কী কারণে এমন হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে এবং এ বিষয়ে বিস্তারিত প্রেস ব্রিফিং করে জানানো হবে।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

64

জেলা প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের সুলতানপুর পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের অভিযোগে আলী হোসেন নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি কুমারখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। আলী হোসেন কয়া ইউনিয়নের বাড়াদী গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে। সোমবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১টার দিকে বালু উত্তোলন অবস্থায় মাঝি ও ড্রেজার চালকসহ ৮ জনকে আটক করা হয়।

জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত সুলতানপুর বেলতলা নামক স্থান থেকে আলী হোসেন ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে লাখ লাখ টাকার বালু উত্তোলন করে আসছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে আলীসহ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে নৌ পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত অন্যরা হলেন-দৌলতপুরের রুবেল শেখ, ভেড়ামারার রাজা ও রুবেল আলী, ঈশ্বরদীর বিজয় কুমার হালদার ও নুরুজ্জামান, মিরপুরের তাজমহল ও কয়ার সবুজ শেখ।

এ বিষয়ে নৌ পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল জলিল জানান, দীর্ঘদিন যাবত বালু উত্তোলন করছিলে। তথ্যের ভিত্তিতে রাত ১ টার সময় তাদেরকে বালু উত্তোলন অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়।

রূপগঞ্জে টেক্সটাইল মিলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এনজেড টেক্সটাইল লিমিটেড নামে একটি রপ্তানিমুখী কারখানার তুলা ও কাপড়ের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে তুলা, কাপড়সহ মেশিনারীজ মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের বলাইখাঁ এলাকায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে কারখানা কর্তৃপক্ষ দাবি করেছেন। তবে এতে হতাহতের কোন সংবাদ পাওয়া যায়নি।

শ্রমিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার দুপুরে হঠাৎ করে এনজেড টেক্সটাইল লিমিডেটের গ্রে কাপড়ের গোডাউনে হঠাৎ করে আগুন ধরে যায়। মুহূর্তের মাঝে আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে যেতে থাকে। এসময় গোডাউনে থাকা শ্রমিকরা আগুন আগুন চিৎকার করে বেরিয়ে পড়ে। এসময় পুরো টেক্সটাইল মিলে শ্রমিকদের মাঝে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শ্রমিকরা ছুটাছুটি করতে শুরু করে। পরে কারখানার ব্যবস্থাপনায় শ্রমিকরা আগুন নেভানোর চেষ্টা শুরু করে। ততক্ষণে আগুনের লেলিহান শিখা আরও বাড়তে থাকে।

তারা জানান, আগুন ৫০ থেকে ৬০ ফুট উঁচুতে উঠে যায়। গোডাউনে থাকা তুলা থেকে তৈরি করা কাপড় ও তুলায় আগুন ধরে যায়। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আশ-পাশের গ্রামের মানুষের মাঝেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ডেমরা, আড়াইহাজার ও আদমজী ফায়ার সার্ভিসের ৯ টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে শুরু করে। কারখানার শ্রমিকরাও আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা করেন। প্রায় টানা সাড়ে ৩ ঘণ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। ততক্ষণে গোডাউনে থাকা কাপড়, তুলা, ১৫ কোটি টাকা মূল্যের রিসাইক্লিন প্লান্টসহ পুরো গোডাউনের সেটটি পুড়ে যায়। আগুনের কারণে গোডাউনের বিল্ডিংটিও ড্যামেজ হয়ে গেছে। তবে, তুলা ফেটার মেশিন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে বেশ কয়েক জন শ্রমিক জানিয়েছেন।

এনজেড গ্রুপের দায়িত্বরত বেনু আহাম্মেদ বলেন, এনজেড গ্রুপ একটি রপ্তানিমুখী প্রতিষ্ঠান। এ গ্রুপে কয়েক হাজার শ্রমিক কাজ করেন। সুনামের সাথে প্রতিষ্ঠানটি ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। কারখানায় আগুন নেভানোর সকল প্রকার ব্যবস্থা থাকায় এবং সময় মতো ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত হওয়ায় কারখানার অন্যান্য সাইটে আগুন ছড়ায়নি। আগুনে পুড়ে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জেলা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরিফিন বলেন, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ডেমরা, আদমজী ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে, সময় মতো আগুন নেভাতে না পারলে আশ-পাশে আগুন ছড়িয়ে আরও বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারতো। আগুনে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। আগুনের সূত্রপাত এখনও সঠিক ভাবে বলা যাচ্ছেনা। তবে, ধারনা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক সর্ট-সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।

ইরানের আটকে রাখা অর্থ ফিরিয়ে দিবে দ. কোরিয়া

13

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে থাকা ইরানি অর্থের একাংশ মুক্ত করার বিষয়ে উভয় দেশের মধ্যে একটি সমঝোতা হয়েছে। ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান আব্দুন নাসের হেম্মাতির সঙ্গে তেহরানে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূতের বৈঠকে এ বিষয়ে ঐকমত্য হয়েছে।

ইরানি মিডিয়া পার্সটুডের খবরে বলা হয়, বৈঠকে আটকে থাকা অর্থের একাংশ ইরানের দেওয়া অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরের বিষয়ে কথা হয়েছে। ইরান অর্থের পরিমাণ এবং হিসাব নম্বরগুলোর তালিকা রাষ্ট্রদূতের কাছে জমা দিয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, ইরান যাতে তার আটকে থাকা সব অর্থ ব্যবহার করতে পারে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিতে দক্ষিণ কোরিয়া প্রস্তুত রয়েছে। এমনকি ক্ষেত্রটি নিয়ে এখন আর কোনো ধরণের সীমাবদ্ধতা নেই।

ইরানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার দৃষ্টিভঙ্গিতে যে পরিবর্তন এসেছে তা অবশ্যই ভালো। তবে দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যাংকগুলো এর আগে অসহযোগিতার মাধ্যমে যে ক্ষতি করেছে তা আদায়ের জন্য ইরান আইনি পদক্ষেপ অব্যাহত রাখবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার বিষয়ে ইরানে যে নেতিবাচক মনোভাব গড়ে উঠেছে তা দূর করতে ব্যাপক চেষ্টা চালানোর জন্য দেশটির প্রতি আহ্বান জানান ইরানের ব্যাংকিং খাতের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

দেশেই তৈরি যুদ্ধবিমানে আকাশসীমা নিরাপদ রাখব নিজেরাই : প্রধানমন্ত্রী

0

নিজস্ব নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশেই যুদ্ধবিমান তৈরি করে আকাশসীমার নিরাপত্তা দেওয়ার আশাপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশেই যুদ্ধবিমান তৈরি করতে পারব। কাজেই এর ওপর গবেষণা করা ও আকাশসীমা রক্ষা নিজেরাই যেন করতে পারি সেভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিমান বাহিনীর ১১ স্কোয়াড্রন ও ২১ স্কোয়াড্রনকে জাতীয় পতাকা প্রদান অনুষ্ঠানে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় বিমান বাহিনী প্রধানসহ সরকারের পদস্থ কর্মকর্তা ও বিমান বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে আরও ১০ ধাপ এগিয়ে নিতে কাজ করছি। এ ক্ষেত্রেও আমরা সফল হব বলে বিশ্বাস করি।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটা গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে। জাতির পিতার ডাকে সাড়া দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয় বিমান বাহিনী। পাকিস্তানের অসংখ্য লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করেছে তারা। সীমিত শক্তি নিয়েও তারা যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে, জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর জাতির পিতা স্বপ্ন দেখেছেন, সবদিক থেকে বাংলাদেশ সমৃদ্ধ হবে। সেই স্বপ্ন থেকেই সীমিত সম্পদ দিয়ে সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তুলেছিলেন। বিশেষ করে আধুনিক বিমান গড়ে তুলেছিলেন তিনি। বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা নীতিমালা-১৯৭৪ করে দিয়ে যান। সে আলোকে আমরা সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তুলছি। দেশের প্রতিরক্ষা খাত আধুনিকায়ন ও কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করছি। এরই ধারাবাহিকতায় লালমনিরহাটে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ নানা কাজ করে যাচ্ছি। আজ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী দেশ ও বিদেশে সম্মানজনক অবস্থান তৈরি করেছে।

জাতীয় পতাকা পাওয়া বিমান বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতীয় পতাকা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা গৌরব ও সম্মানের। এ পতাকার মান রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। আমি মনে করি, আপনারা এই মর্যাদা রক্ষা ও দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সদা প্রস্তুত থাকবেন।

তিনি বলেন, বিশ্বায়নের যুগে যে কোনো দেশের জন্য পেশাদার বিমান বাহিনী অপরিহার্য। আধুনিক ও যুগোপযোগী বাহিনী গড়তে আমরা ফোর্সেস গোল বাস্তবায়নে কাজ করছি।

দেশে এসেছে আরও ২০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন

176

নিজস্ব প্রতিবেদক : বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দ্বিতীয় চালানে দেশে এসেছে আরও ২০ লাখ ডোজ করোনা টিকা।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টা ২২ মিনিটের দিকে সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কোভিশিল্ডের এই টিকার চালানটি ভারতের স্পাইসজেট এসজি-০০৬৩ ফ্লাইটযোগে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

পরে রাতে বিমানবন্দরের ৮ নম্বর গেটে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ৫টি বিশেষ ফ্রিজার কাভার্ডভ্যান এসে পৌঁছায়। এরপর একে একে এই ভ্যানগুলো ৮ নম্বর গেট দিয়ে বিমানবন্দরের রানওয়েতে প্রবেশ করে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. আবু নাঈম মোহাম্মদ সোহেল জানান, স্পাইস জেটের একটি ফ্লাইটে অন্যান্য মালামালের সঙ্গে টিকার চালানও এসেছে। এই ভ্যাকসিন এখান থেকে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ওয়ারহাউজে নেওয়া হচ্ছে। সেখান থেকে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ছাড়পত্র পাওয়ার পরে চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হবে।

এ নিয়ে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা ভাইরাসের টিকার ৯০ লাখ ডোজ বাংলাদেশে এসেছে। সেরাম ইনস্টিটিউটের সাথে চুক্তি অনুযায়ী প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ করে ছয় মাসে তিন কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার কথা।

এর আগে ভারত সরকারের উপহার দেওয়া ২০ লাখ ডোজ করোনার টিকা আসে বাংলাদেশে। গত ২১ জানুয়ারি বেলা ১১টা ২০ মিনিটে এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় টিকার প্রথম চালান।

সিরাজগঞ্জে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধাসহ নিহত ৫

874

জেলা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ : যাত্রীবাহী বাস ও মালবাহী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে সিরাজগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। একই দুর্ঘটনায় আরও অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টার দিকে জেলার কামারখন্দ উপজেলার কোনাবাড়ী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হকের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি বগুড়ার মাঝিড়া বি-ব্লকের বাসিন্দা। তবে অন্যদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোসাদ্দেক হোসেন জানান, বগুড়া থেকে ময়মনসিংহগামী যুগান্তর পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটি ঘটনাস্থলে পৌঁছলে সামনের চাকা ফেটে যায়। এ সময় চালক নিয়ে হারিয়ে ফেললে ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী তেলবাহী ট্রাকের সাথে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রাকের চালকসহ বাসের ৪ জনের মৃত্যু হয়।

পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। ওই সময় আহতদের মধ্যে আরও একজন মারা যায়।

Dhaka, BD
haze
21 ° C
21 °
21 °
78 %
2.3kmh
20 %
বৃহঃ
34 °
শুক্র
36 °
শনি
35 °
রবি
36 °
সোম
37 °

সর্বাধিক পঠিত