ইউনিলিভার বাংলাদেশের সিইও জাভেদ আখতার

0
179

দেশের অন্যতম বৃহত্তম নিত্যব্যবহার্য পণ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানি (ইউনিলিভার) বাংলাদেশ লিমিটেড (ইউবিএল) তাদের নতুন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হিসেবে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) জাভেদ আখতারের নাম ঘোষণা করেছে।

বৃহস্পতিবার ইউনিলিভার থেকে পাঠানো এ তথ্য জানানো হয়।

চলতি বছরের ১ জুলাই তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন পদের দায়িত্বভার গ্রহণ করবেন। পাশাপাশি ইউনিলিভার সাউথ এশিয়া লিডারশিপ টিমেও যোগদান করবেন জাভেদ।

বর্তমানে তিনি ইউনিলিভারের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অ্যান্ড গ্রোথ বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

জাভেদ তার নতুন পদে কেদার লেলে’র স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন। কেদার লেলে ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাস থেকে ইউনিলিভার বাংলাদেশের সিইও এবং এমডি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পাশাপাশি তিনি ২০২০ সাল থেকে ইউনিলিভার বাংলাদেশের চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন। কেদার এখন কনজ্যুমার ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজিং কমিটির নির্বাহী পরিচালক হিসেবে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার লিমিটেড (এইচইউএল) এ যোগদান করবেন। পাশাপাশি তিনি ইউনিলিভার বাংলাদেশের চেয়ারম্যান পদেও বহাল থাকবেন।

কর্পোরেট ব্যবসাখাতে দীর্ঘ অভিজ্ঞতাসম্পন্ন জাভেদ আখতার তার কর্মজীবন শুরু করেন ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোতে। এরপর ২০০০ সালে তিনি ‘ওরাল কেয়ার’ ব্যবসার সিনিয়র ব্র্যান্ড ম্যানেজার হিসেবে ইউনিলিভারে যোগদান করেন। দক্ষিণ এশিয়া, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং অস্ট্রেলেশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে সুদীর্ঘ ২৪ বছরের কাজের অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ জাভেদ আখতারের বিশেষ পারদর্শিতার ক্ষেত্রগুলো- কনজ্যুমার সেন্ট্রিসিটি, ডিজাইন থিংকিং এবং ইনোভেশন ম্যানেজমেন্ট। জাভেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

জাভেদ আখতার ‘ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অ্যান্ড গ্রোথ’ বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর হিন্দুস্তান ইউনিলিভার লিমিটেড (এইচইউএল) এর জন্য ‘ডিজিটাল কাউন্সিল’ স্থাপন করেন। এছাড়া ইউনিলিভারে বহুল পরিচিত ‘রিইমাজিন এইচইউএল’ এজেন্ডার রূপকারও তিনি। সমন্বিত এই অ্যান্ড-টু-অ্যান্ড ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন প্রোগ্রামটি ইউনিলিভারে দারুণ সাড়া ফেলেছে।

এ প্রসঙ্গে ইউনিলিভার সাউথ এশিয়ার প্রেসিডেন্ট সঞ্জীব মেহ্তা বলেন, বাংলাদেশে ইউনিলিভার এর ব্যবসায় অসাধারণ নেতৃত্ব দেওয়ায় আমি কেদারকে ধন্যবাদ দিতে চাই। নতুন ক্রেতা তৈরি, কোম্পানির অ্যান্ড-টু-অ্যান্ড সাপ্লাই চেইনে রূপান্তর আনা, মেধা উন্নয়ন ও ইউনিলিভার বাংলাদেশে বৈচিত্র্য আনয়নের ক্ষেত্রে তার অবদান সত্যিই প্রশংসনীয়। এ পর্যায়ে ইউনিলিভার বাংলাদেশের নতুন সিইও এবং এমডি হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় জাভেদকে অভিনন্দন। সাউথ এশিয়া লিডারশিপ টিমে তাকে স্বাগত জানাতে পেরে আমি আনন্দিত। ইউনিলিভারের প্রবৃদ্ধির প্রধান পাঁচটি মূলনীতি নির্ধারণ এবং ভারতে ‘রিইমাজিন এইচইউএল’ এজেন্ডা বাস্তবায়নে তার অবদান অনস্বীকার্য। আমি নিশ্চিত যে, ইউনিলিভারের বাংলাদেশ অংশের ব্যবসাকে তিনি নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দিতে সক্ষম হবেন।