মিরপুরে গৃহহীনদের ঘর নিয়ে অনিয়মের রিপোর্ট গণমাধ্যমে প্রকাশের পর জেলা প্রশাসকের আকস্মিক পরিদর্শন

1
101

এই ঠিকাদারকে দিয়ে যেখানেই ঘর করা হয়েছে , সেখানেই দুনীর্তি হয়েছে, তার খুটির জোর কোথায় ..?
মিরপুর উপজেলার যে খনেই ঘর তৈরী করেছে, সেখানেই অনিয়ম করেছে। ‍দুণীতি পেলে ব্যবস্থা প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষনা দেওয়াতে তরিঘড়ি করে কোন রকম প্লাষ্টার ও রঙ করে দিয়েছে অনেক ঘরে। যা সাংবাদিকবৃন্দদের কাছে ভিডিও ও ছবি রয়েছে।

এ সংবাদে কুষ্টিয়ার মিরপুরে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সাইদুল ইসলাম আকস্মিক সফরে এসে প্রধানমন্ত্রীর গৃহহীনদের জন্য ঘর নির্মান প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন।

মঙ্গলবার ৬জুন বিকেল ৫টায় মিরপুর উপজেলার ধুবইল ইউনিয়নের আজমতপুর ও আমলা ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রামে নির্মানাধীন এ প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

মিরপুরে গৃহহীনদের ঘর প্রদানের চারদিনের মাথায় পত্রপত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একাধিক অনিয়মের অভিযোগ আসে।গত ২০জুন দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রী এ ঘরগুলো উদ্বোধন করেন। বিশেষ করে মিরপুরের ধুবইল ইউনিয়নের আজমতপুর গ্রামে নির্মানাধীন প্রকল্পে চারদিনের মাথায় ঘরে ফাটল দেখা দেয় এবং নিম্নমানের প্লাস্টার হতে দেখা যায় বলে বসবাসরত পরিবারগুলো সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন।

তাছাড়া ঘরের মেঝে দিয়ে কলা গাছের চারা বের হয়ে আসা,ঘরের মেঝেতে পায়ের চাপে দেবে যাওয়া, বাথরুম বসে যাওয়া,বৃষ্টির পানি ঘরের মধ্যে প্রবেশ করা,জানালা লাগানো কয়েকদিনের মধ্যেই ভেঙ্গে পড়া,নতুন নির্মানাধীন ৩০টি ঘরের পাশে গর্ত করে মাটি নেয়ায় ও গাথুনিতে সিমেন্টের পরিমান সঠিক না থাকায় কয়েকদিন পূর্বে ঘর ধ্বসে পড়া, ঘরগুলো নিচু জায়গায় তৈরি করা হয়েছে বলে অতি বৃষ্টিতে পানি উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকা,নিম্নমানের ইট ব্যবহার,ভাংরি দোকান থেকে রড কিনে লিংটন ঢালাই,পিলারে ফাটল,জানালা দরজার গ্রীলে নিম্নমানের শীট ব্যবহার সহ নানাবিধ অনিয়ম হয়েছে বলে বসবাসরত পরিবারগুলো সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেছিলেন।

বিষয়টি জেলা প্রশাসকের নজরে আসলে আকস্মিক পরিদর্শনে আসেন তিনি।আগেই বেশকিছু অনিয়ম ঠিক করার চেষ্টা করা হলেও ধ্বসে পড়া দেয়ালের ধ্বংসাবশেষ সহ কিছু অনিয়মের আলামত স্পটে পাওয়া যায়।
জেলা প্রশাসক সাইদুল ইসলাম ইতিপূর্বে উদ্বোধনকৃত বাড়িগুলোর বাসিন্দাদের খোজ খবর নেন এবং করোনা মোকাবেলায় সাস্থ্য সচেতনামূলক বক্তব্য রাখেন।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)মোঃ সিরাজুল ইসলাম,উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিংকন বিশ্বাস ও সহকারী কমিশনার(ভূমি) উপস্থিত ছিলেন।

1 COMMENT

Comments are closed.