সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জোহানেসবার্গের মেয়র

64
111

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন দক্ষিণ আফ্রিকার বৃহত্তম শহর জোহানেসবার্গের নতুন মেয়র জোলিডি মাতোঙ্গো (৪৬)। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিবিসির খবরে বলা হয়, দুর্ঘটনার আগে মেয়র প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসার সঙ্গে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার সড়কে এক পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে মেয়রের গাড়িটি একটি ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে সেই পথচারী ও গাড়িচালকও মারা যান। নিহত হন মেয়রও।

করোনায় জোহানেসবার্গের আগের মেয়র মারা যাওয়ার পর ১০ আগস্ট জোলিডি মাতোঙ্গো (৪৬) মেয়র হন। এর ৪০ দিনের মাথায় তিনিও প্রাণ হারান।

জোলিডি মাতোঙ্গো একজন জিম্বাবুয়ে অভিবাসীর ছেলে। তিনি ১৩ বছর বয়স থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় রাজনীতিতে যুক্ত। প্রচারণা চালাচ্ছিলেন বর্ণবাদের বিরুদ্ধে।

এদিকে মেয়রের মৃত্যুতে দুঃখ প্রকাশ করে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট বলেন, এই মর্মান্তিক ঘটনাটি মেনে নেওয়া আসলে কঠিন। মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগেও মাতোঙ্গো আমার এবং সোয়েটোর বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন।

64 COMMENTS

  1. First off I would like to say excellent blog!
    I had a quick question in which I’d like to ask if you do not mind.
    I was curious to find out how you center yourself and clear your head before
    writing. I’ve had a tough time clearing my thoughts in getting my thoughts out.
    I truly do take pleasure in writing however it just seems like the first 10 to 15 minutes tend to
    be wasted just trying to figure out how to begin. Any ideas or tips?
    Thank you!

  2. With havin so much content and articles do you ever run into any issues of plagorism or copyright infringement?
    My site has a lot of completely unique content I’ve either
    created myself or outsourced but it appears a lot of it is popping it up all over the internet without my agreement.
    Do you know any solutions to help protect against content from being stolen? I’d
    certainly appreciate it.

  3. Undeniably imagine that that you stated. Your favorite reason appeared to be
    at the internet the simplest factor to have in mind of. I say
    to you, I definitely get irked while people consider worries
    that they plainly don’t recognize about. You managed to
    hit the nail upon the highest and outlined out the entire thing with no need side-effects , folks could take a signal.
    Will probably be back to get more. Thank you

Comments are closed.