ধর্ষণের মামলার পর আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

1
704

অনুসন্ধান নিউজ ডেস্ক : সাতক্ষীরার কলারোয়ায় এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সেই মামলার আসামি পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

শনিবার রাত আড়াইটার দিকে সীমান্তবর্তী চন্দনপুর ইউনিয়নের হিজলদি গ্রামে গোলাগুলির ওই ঘটনা ঘটে বলে কলারোয়ার ওসি বিপ্লব কুমার নাথের ভাষ্য।

নিহত সোহাগ সরদার (২৬) কেড়াগাছি ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামের সামছুর সরদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে শনিবার রাতেই ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা হয় কলারোয়া থানায়।

সেখানে অভিযোগ করা হয়, শনিবার বিকালে ওই গ্রামের তৃতীয় শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন সোহাগ। মামলা হওয়ার পর পুলিশ আসামি ধরতে অভিযানে নামে বলে জানান ওসি।

তিনি বলেন, “রাত আড়াইটার দিকে পুলিশ হিজলদি গ্রামের এক মাঠে এক যুবককে চ্যালেঞ্জ করলে সে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায় । দুই পক্ষের গোলাগুলির পর ওই যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।”

পুলিশ তাকে কলারোয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে নিহত ওই যুবককে সোহাগ সরদার হিসাবে শনাক্ত করা হয় বলে জানান ওসি।

তিনি বলছেন, রাতের ওই অভিযানে পুলিশের এএসআই আহসান ও এএসআই সাগর আহত হয়েছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ানশুটার গান ও এক রাউন্ড গুলি উদ্ধারের কথাও জানানো হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।